তোমরা সজনে ডাঁটা চেন?

অবশ্য চিকেন ষ্টিকের সাথে সকালসন্ধ্যা পরিচিত প্রজন্ম, সজনে ডাঁটা না চিনলে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

রেইনট্রির মত বিশাল বড় হয় সেই গাছ। ঝিরিঝিরি ছোট পাতা থাকে তাতে। ডালগুলো বেশ নরম হয়।

আমার দাদুর বাড়ীতে ছিল, সামনের উঠোনের এক কোণায়। দুহাত দিয়ে ছোট বেলায় জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করতাম। কিন্তু কোন দিনই অর্ধেকের বেশী ধরতে পারিনি। যার কারনে কোনদিন সেই গাছ বেয়ে উঠাও হয় নি।

সজনে গাছের সৃজন সময়ে ডাঁটা হয়। প্রায় এক থেকে দেড়ফিটের মত লম্বা হয় সেই ডাঁটা, হাল্কা সবুজ রঙের।

তোমরা খেয়েছ কখনো সজনে ডাঁটা?

আমার মা সজনে ডাঁটা খুব ভাল রান্না করতে পারে। সরিষা বাটা, নারকেল, আর মৌরি দিয়ে যে ভোগ রান্না করা হয় সেটার ঘ্রাণ খাবার পাতে বসার অন্ত দশ হাত দূর থেকে পাওয়া যায়।

 

 

অসাধারণ সেই স্বাদ। ঝরঝরে হালকা গরম ভাতের সাথে সজনে ডাঁটার ব্যঞ্জন, একটু আলু ভর্তা, আর ঘন মুঘ ডাল তোমার স্বাদ তন্ত্রীতে অদ্ভুত একটা অনুভূতি দেবে।

রান্না করাটা একটা আর্ট। অনেকেই এই উঁচুদরের আর্টকে ভালবেসে লালন করে। আর কেউ দায়পরবশ হয়ে করে।

যেই রান্নাতে দরদ থাকে, সেই রাঁধুনী খাবারের শেষে জিজ্ঞাসা করে কেমন হয়েছে রে?

এই প্রশ্নটার উত্তর দুরকম হয় যেই পক্ষ খাবার খায় তার উত্তর হয় এক রকম, আর যে পক্ষ খাবারকে উপভোগ করে তার উত্তর হয় ভিন্ন রকম।

তোমরা অবাক হচ্ছ?

সব সময় শুনে এসেছ মানুষ খাবার খায়। আর এখন শুনছো খাবার উপভোগ করে।

হ্যাঁ, ঠিকই শুনেছ। খাবার উপভোগেরও জিনিস।

যে রাঁধুনী দরদ দিয়ে রান্না করে, সেই রাঁধুনী সব শেষে একটা কাজ করে নিজ হাতে পরিবেশন করে। পরিবেশনের সময় জুড়ে সে তোমার চোখের পানে চেয়ে থাকে। চোখের তারায় খেলতে থাকা আলো দেখে উনি বুঝেনেন তুমি কি শুধুই খেয়েছ, নাকি উপভোগ করেছ?

এই খাবারের অনেক গল্প আছে, জান?

খাবারের পাতে প্রেম এবং সংঘাত দুটোরই জন্ম হয়।

তোমরা দেবব্রত ভীষ্ম কে চেন? কিংবা কৌরব ও পাণ্ডুপুত্রদের? তবে একটা গল্প বলি আজ।

বনবাস থেকে প্রাসাদে ফিরে আসার পরে পাণ্ডুপত্ররা কৌরবদের সাথে প্রথমবারের মত খেতে বসেছিলো। সেই প্রথম, কৌরবরা তাদের অন্য ভাই পাণ্ডবদের দেখতে পায়। সেদিনের সেই ভোজন পর্বে মন্ত্রী বিদুর আর দেবব্রত ভীষ্ম উপস্থিত ছিলেন। ভীষ্ম একটা অদ্ভুত নিয়ম করলেন সেদিন নিজের হাতের কনুই ভাঁজ না করে খেতে হবে।

বড় অদ্ভুত, হুঁ?

আমরা সবাই খাবার শেষ করে উঠে পড়ি। কী তাড়া আমাদের ! খাবারের সাথে সাথে, ঐ মানুষটার প্রাপ্য প্রশংসাটাও আমরা খেয়ে ফেলি।

যাক সে কথা।

ভীষ্মের মত তোমাদেরকেও সেই ধাঁধা টা দিই তোমরা কি নিজের হাতের কনুই ভাঁজ না করে খেতে পারবে?